লবঙ্গ চা পানের উপকারিতা জেনে নিন

কমবেশি চা সবাই পান করে থাকে। কাজের ফাঁকে বা অবসর সময়ে এক কাপ চা পান করা যেন রীতি হয়ে গেছে। আর আড্ডার কথা তো বলাই বাহুল্য, আড্ডায় বসে ঠিক কত কাপ চা পান করা হয় সেটার বোধহয় হিসেব থাকে কারোরই। দুধ চা, রঙ চা, লেবু চা, আদা চা, তুলসী পাতা চাসহ নানান রকমের চায়ের কথা জানলেও লবঙ্গ চায়ের কথা মোটামুটি অনেকেরই অজানা।

তাই এই লবঙ্গ চায়ের নানা গুণের কথাও আমাদের অজানা। আসুন জেনে নেই লবঙ্গ চায়ের উপকারিতা। লবঙ্গে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে।

এই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। লবঙ্গ থেকে যে তেল পাওয়া যায়, তাতে ইউজেনল নামে একপ্রকার উপাদান থাকে। এটি দাঁতে ব্যথা, মাড়িতে ঘা বা আলসার জাতীয় যেকোনো রোগের বিরুদ্ধে লড়তে সাহায্য করে।

মনে রাখবেন- লবঙ্গ অ্যান্টিসেপটিক ও অ্যান্টিভাইরাল গুণ সম্পন্ন। এর মধ্যে থাকা উপাদানগুলো গলা ব্যথা, সর্দি-কাশি কিংবা মাথা ব্যথা কমাতে দারুণ কাজ দেয়।

লবঙ্গে থাকা ইউজেনল হজম প্রক্রিয়াতেও সাহায্য করে। আর যদি খাবার ভালোভাবে হজম হয়, তাহলে শরীরও সুস্থ থাকে।

হঠাৎ করে ওজন কমে যাওয়ার প্রবণতা কমে যায়। তবে শুধু হজম নয় স্বাভাবিক ও স্বতঃস্ফূর্তভাবে বিপাক ক্রিয়াতেও সাহায্য করে এই ইউজেনল।

রোগ প্রতিরোধের পাশাপাশি ত্বকের সৌন্দর্য বজায় রাখতে লবঙ্গের ভূমিকা অপরিসীম। লবঙ্গের চা বানানোর সহজ উপায়: প্রথমে এক চামচ লবঙ্গ চূর্ণ নিন। তারপর এক কাপ পানি নিয়ে তাতে ওই লবঙ্গচূর্ণ মিশিয়ে ফোটাতে শুরু করুন। এরপর তিন-চার মিনিট রাখুন ও ঠাণ্ডা করুন।

যদি চান তাহলে এই লবঙ্গ চায়ে এক চামচ মধুও দিতে পারেন। প্রতিদিন সকালে এই চা পান করুন। তবে মাথায় রাখবেন লবঙ্গ চা পান করার মাত্রা যেন বেড়ে না যায়। কারণ অতিরিক্ত মাত্রায় যেকোনো কিছুই আপনার স্বাস্থ্যের ক্ষতি করতে পারে। তাই নিয়ম মেনে লবঙ্গ চা পান করুন এবং সুস্থ থাকুন।

Sharing is caring!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *